সোমবার, ০৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
রাজবাড়ী জেলায় নৌকার প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন পরিচালনায় যুবলীগের কমিটি গোয়ালন্দে মহাসড়কের পাশে বন বিভাগের ৫৪১টি গাছ কেটে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা রাজবাড়ীতে নিরাপদ অভিবাসন ও দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত রাজবাড়ী থিয়েটারের আয়োজনে চার দিনব্যাপী নাট্যোৎসব শুরু রাজবাড়ী কালেক্টরেটের পক্ষ থেকে এডিসি মাহাবুর রহমানকে বিদায় সংবর্ধনা প্রদান রাজবাড়ী জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে এডিসিকে বিদায় সংবর্ধনা পাংশায় অস্ত্র মামলায় গ্রেফতারকৃত কৃষক লীগ নেতা হেনা মুন্সী শ্রীঘরে পাংশায় নিপা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনসচেতনতায় র‌্যালী ও আলোচনা সভা পাংশায় ইটভাটার মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে সোয়া তিন ঘন্টা ফেরী চলাচল বন্ধ

শ্রীপুর লজ্জাতুন নেছা মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিদারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৯, ৮.০৪ পিএম
  • ৩৭৫ বার পঠিত

॥স্টাফ রিপোর্টার॥ সহকর্মি শিক্ষকের কলেজ পড়–য়া কন্যা (২২)কে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে রাজবাড়ীর শ্রীপুর লজ্জাতুন্নেছা কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিদার উল্যাহ(৪৫) বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
গত ২০শে আগস্ট ওই কলেজ ছাত্রী বাদী হয়ে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন বিশেষ ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করেন। গত ৭ই আগস্ট বিকেলে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে মোবাইলে ডেকে নিয়ে নিজ ভাড়া বাসায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিদার উল্যাহ তাকে ধর্ষণ করে।
অভিযুক্ত দিদার উল্যাহ বরগুনা জেলার বেতাগি উপজেলার গ্রেদলক্ষীপুর গ্রামের মৃত আঃ গনির ছেলে। তিনি দুই বছরের অধিককাল সময় ধরে রাজবাড়ীর শ্রীপুর লজ্জাতুন্নেছা কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।
মামলার আরজিতে উল্লেখ করা হয়, ওই ছাত্রী রাজবাড়ী সরকারী কলেজে প্রাণি বিদ্যা বিভাগের ১ম বর্ষে পড়াশুনা করেন। তার বাবাও একই মাদরাসায় এবতেদায়ী সহকারী শিক্ষক পদে শিক্ষকতা করেন। যে কারণে সে মাঝে মধ্যে ওই মাদরাসায় যাতায়াত করতো। এছাড়াও ওই ছাত্রীর বড় বোনের বাড়ী শ্রীপুর ফিলিং স্টেশনের পাশে। মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিদার উল্যাহ একই এলাকায় ভাড়া থাকেন। মাদরাসা ও বোনের বাড়ীতে যাতায়াতকালে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিদার উল্যা তার ওপর কু-দৃষ্টি দেয়। ঘটনার দুই মাস আগে সে ওই মাদরাসায় তার বাবার কাছে গেলে দিদার উল্যাহ তাকে কাছে ডেকে পড়াশুনার খোঁজ খবর নেয়ার পাশাপাশি তার মোবাইল নম্বর ও ফেসবুক আইডি জেনে নেয়। এরপর থেকে দিদার উল্যা তাকে ওই মাদরাসায় চাকুরীর প্রলোভন দেখাতো। গত ৭ই আগস্ট দুপুরে কলেজ থেকে ওই ছাত্রী তার বড় বোনের বাড়ীতে যায়। বোনের বাড়ীতে থাকা অবস্থায় দুপুর ২টার দিকে দিদার উল্যাহ চাকুরীর ব্যাপারে কথা আছে বলে মোবাইলে ওই ছাত্রীকে তার বাসায় ডেকে নেয়। এরপর ওই ছাত্রী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের ভাড়া বাসায় গেলে দিদার উল্যাহ ঘরের দরজা বন্ধ করে দিয়ে মুখ চেপে ধরে তাকে ধর্ষণ করে।
মামলার আইনজীবি অ্যাডভোকেট খোন্দকার হাবিবুর রহমান বাচ্চু জানান, বিজ্ঞ আদালত মামলাটি এফআইআর হিসেবে রেকর্ড করার জন্য রাজবাড়ী থানার ওসিকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।
রাজবাড়ীর শ্রীপুর লজ্জাতুন্নেছা কামিল মাদরাসার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শিরিন আক্তার জানান, ঈদের ছুটির পর দিদার উল্যাহ আর মাদরাসায় আসেননি। তবে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শিরিন আক্তার ধর্ষণের বিষয়ে কিছু বলতে রাজী হননি।
এদিকে একটি সূত্র জানায়, ঘটনাটি জানার পর গত ১৪ই আগস্ট সকালে মাদরাসার গর্ভনিং বডির এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ঘটনার বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিদার উল্যাহকে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদানসহ তার অনুপস্থিতিতে শিরিন আক্তারকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved  2019 Rajbarisangbad
Theme Developed BY ThemesBazar.Com